উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানম ও তার বাবার ওপর মধ্যরাতে হামলা চালিয়ে গুরুতর জখম করার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম ও সদস্য আসাদুল ইসলামকে যুবলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

আরো পড়ুন:- ১.ইউএনও’র উপর দুর্বৃত্তদের হামলা, অবস্থা ‘আশঙ্কাজনক’
২. বেগম জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ছে আরও ৬ মাস

তিনি বলেন, ‘যুবলীগ একটি সুশৃঙ্খল সংগঠন। কোনও সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজদের ঠাঁই নেই। যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের নির্দেশে ঘোড়াঘাট ইউএনওর ওপর হামলার ঘটনায় আটক যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম ও আসাদুল ইসলামকে বহিষ্কার করা হয়েছে।’

২০১৭ সাল থেকে ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জাহাঙ্গীর হোসেন। আর আসাদুল ঘোড়াঘাট যুবলীগের সদস্য।জাহাঙ্গীরের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে স্থানীয় সংসদ সদস্য ক্ষুব্ধ।স্থানীয় সংসদ সদস্য শিবলী সাদিকের ডিওসহ জেলা যুবলীগের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছিল চলতি বছরের ৭জুন তবে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

উল্লেখ্য, গত বুধবার (০২ সেপ্টেম্বর) দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলী শেখকে কুপিয়ে আহত করে দুর্বৃত্তরা।রাত আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অবস্থা গুরতর হওয়ায় দুপুরে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে তাকে ঢাকায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।এ ঘটনায় শুক্রবার (০৪ সেপ্টেম্বর) ভোরে আসাদুল হক ও জাহাঙ্গীর হোসেনকে গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here