অনলাইন ডেস্কঃ দখলকৃত পূর্ব জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদ চত্বরে ঢুকে নতুন করে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। এতে তিন সাংবাদিকসহ প্রায় ৩০ জন ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন। আজ সোমবার সকালে এই হামলা চালানো হয়।

ঘটনাস্থলে থাকা সাংবাদিকদের বরাত দিয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল–কাতারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দাঙ্গা পুলিশের সাজে রাবার বুলেট ও স্টান গ্রেনেড নিক্ষেপ করতে করতে মসজিদ চত্বরে প্রবেশ করে ইসরায়েলি বাহিনী। এ সময় তাদের লক্ষ্য করে পাথর ছোড়ে ফিলিস্তিনিরা।

মসজিদ চত্বরে ছোটখাটো একটি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাও ঘটে। ইসরায়েলি পুলিশ মসজিদ চত্বরে একটি গাছ পুড়িয়ে দেয় বলে অভিযোগ করেছেন ফিলিস্তিনিরা। তবে পুলিশ বলছে, ফিলিস্তিনিদের নিক্ষেপ করা বাজি থেকে এই আগুন ছড়িয়ে পড়ে।

ফিলিস্তিন রেড ক্রিসেন্ট আহতের সংখ্যা ৩১ জন বলে জানিয়েছে। তাদের মধ্যে চিকিৎসার জন্য ১৪ জনকে হাসপাতালে নিতে হয়েছে। পাথরের আঘাতে এক পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে ইসরায়েলি পুলিশ।

সংঘর্ষের জন্য ফিলিস্তিনিদের পাথর নিক্ষেপকে দায়ী করেছে ইসরায়েলি পুলিশ। তাদের দাবি, মসজিদ চত্বরে প্রবেশে তারা ফজরের নামাজ শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করেছিল।

ইসরায়েলের অভ্যন্তরে একাধিক হামলা এবং দখলকৃত পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনীর অভিযানে সৃষ্ট উত্তেজনার মধ্যে গত কয়েক দিন পবিত্র ওই স্থান সংঘর্ষের কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে।

এর আগে ১৫ এপ্রিল আল-আকসা মসজিদ চত্বরে ইসরায়েলি বাহিনীর হামলায় ১৫২ জন ফিলিস্তিনি আহত হন। এরপর ১৭ এপ্রিল একই ধরনের হামলায় আরও ১৭ ফিলিস্তিনি আহত হন।

মুসলিমদের পবিত্র রমজানের সঙ্গে ইহুদিদের ‘পাসওভার উৎসবের’ সময় মিলে যাওয়ায় এ বছর উত্তেজনা বেড়েছে। শুক্রবার থেকে মুসলিমদের পবিত্র রমজান মাসের শেষ ১০ দিন আল-আকসা চত্বরে ইহুদি গোষ্ঠীগুলোর পরিদর্শন স্থগিত করা হয়েছে। সূত্রঃ প্রথম আলো

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here