অনলাইন ডেস্কঃ ওমিক্রন নিয়ে উদ্বেগের মাঝেই বড় সিদ্ধান্ত নিল ভারত। আগামী ১৫ ডিসেম্বর থেকে ভারত থেকে আন্তর্জাতিক উড়ান পরিষেবা স্বাভাবিক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু, এখনই সেই পরিষেবা পুনরায় চালু করার সিদ্ধান্ত বদল করল কেন্দ্র।

আজ বুধবার দেশটির ডাইরেক্টরেট জেনারেল অব সিভিল এভিয়েশন (ডিজিসিএ) পূর্ব ঘোষিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালুর সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছে। ১২টি ঝুঁকি পূর্ণ দেশ থেকে যারা ভারতে ফিরবেন তাদের ক্ষেত্রে নতুন নির্দেশিকা মেনে চলার বার্তা দেওয়া হয়েছে।

নতুন নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, যে সব দেশে ওমিক্রন-এর সন্ধান পাওয়া গেছে, সেখান থেকে ভারতে আসতে গেলে মেনে চলতে হবে কড়া বিধিনিষেধ। বিমান থেকে নামার পর বিমানবন্দরেই বাধ্যতামূলক করা হয়েছে কোভিড পরীক্ষা। পাশাপাশি প্রত্যেক যাত্রীকে উড়ানের আগে নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে। এছাড়াও জমা করতে হবে শেষ ১৪ দিনের ট্রাভেল হিস্ট্রি।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন এখন পর্যন্ত ২২ দেশে ছড়িয়েছে। সর্বশেষ সৌদি আরবে শনাক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে ২২ দেশে ছড়িয়েছে করোনার নতুন এই ধরন। বিজ্ঞানবিষয়ক সাময়িকী নেচারের অনুসারে, ওমিক্রন ধরন প্রথম আফ্রিকার দেশ বতসোয়ানায় শনাক্ত হয়।

এরপর করোনার এই ধরন আফ্রিকার আরও কয়েকটি দেশে ছড়িয়ে পড়ে। এই দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া, অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, কানাডা, চেক প্রজাতন্ত্র, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জার্মানি, হংকং, ইসরায়েল, ইতালি, জাপান, নেদারল্যান্ডস, পর্তুগাল, স্পেন, সুইডেন, যুক্তরাজ্য, নাইজেরিয়া।

নতুন ধরন ছড়ানো শুরুর পর থেকে আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছে বিভিন্ন দেশ। সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, এই রেজিমেন্টের বিস্তার ঠেকাতে কমপক্ষে ৭০টি দেশ ও অঞ্চল আফ্রিকার বেশ কয়েকটি দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। সূত্রঃ বিডি-প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here